সকালে উত্থান হলেও, দিনশেষে পতন শেয়ার বাজারে

অর্থনীতি রিপোর্ট : পুঁজিবাজারে সোমবার (৭ জুন) শেয়ার বিক্রির চাপের মধ্যদিয়ে লেনদেন শুরু হয়। তবে ব্যাংক-বিমা কোম্পানির শেয়ারের দাম বাড়ায় লেনদেনের ২০ মিনিটের মাথায় সূচকের উত্থান হয়। লেনদেনের প্রথম এক ঘণ্টায় অর্থাৎ সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত সময়ে দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচক বাড়ে ৮ পয়েন্ট। প্রথম এই এক ঘণ্টায় ডিএসইতে লেনদেন ৭শ’ ১৮ কোটি ১৭ লাখ ৬ হাজার টাকা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত শেয়ার বাজারে বড় দরপতন হয়।

বৃহস্পতিবার (৩ জুন) জাতীয় সংসদে ২০২১-২২ অর্থবছরের জন্য ৬ লাখ ৩ হাজার ৬শ’ ৮১ কোটি টাকার প্রস্তাবিত বাজেট উপস্থাপন করেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। প্রস্তাবিত এই বাজেটে করপোরেট কর হার কমানোর প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

তবে কালো টাকার বিষয়ে প্রস্তাবিত বাজেটে কিছুই বলেননি অর্থমন্ত্রী। অর্থমন্ত্রী নতুন বছরের প্রস্তাবিত বাজেট দেওয়ার পর রবিবার (৬ জুন) সাড়ে ১০ বছর বা ২০১০ সালের ৬ ডিসেম্বরের পর ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সর্বোচ্চ লেনদেন হয়। তবে এদিন দরপতন হয় বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের।

এদিকে সোমবার লেনদেনের শুরুতে প্রায় সবকটি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বাড়ে। এতে প্রথম মিনিটেই ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ১৯ পয়েন্টে বেড়ে যায়। তবে সূচকের এই ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি।

বরং শেষদিকের লেনদেনে একের পর এক প্রতিষ্ঠান দরপতনের তালিকায় নাম লেখাতে থাকে। ফলে বড় পতন দেখা দেয় শেয়ার বাজারে। দিনের লেনদেন শেষে ডিএসইর প্রধান মূল্য সূচক আগের দিনের তুলনায় ৬২ পয়েন্ট কমে ৫ হাজার ৯শ’ ৭৫ পয়েন্টে নেমে গেছে।

অপর দুই সূচকের মধ্যে ডিএসই-৩০ সূচক ২৭ পয়েন্ট কমে ২ হাজার ১শ’ ৯৫ পয়েন্টে অবস্থান করছে। আর ডিএসইর শরিয়াহ্ সূচক ৯ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ২শ’ ৮৯ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। দিনভর বাজারটিতে লেনদেনে অংশ নেওয়া ৯৮টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বাড়ার বিপরীতে দাম কমেছে ২শ’ ৪২টির। আর ২৭টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।

বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের দরপতনের সঙ্গে কমেছে লেনদেনের পরিমাণ। দিনভর বাজারে লেনদেন হয়েছে ২ হাজার ৮৩ কোটি ২৮ টাকা টাকা। আগের দিন লেনদেন হয় ২ হাজার ৬শ’ ৬৯ কোটি ৩৮ টাকা টাকা। সেই হিসাবে লেনদেন কমেছে ৫শ’ ৮৬ কোটি ১০ লাখ টাকা।

আরেক শেয়ার বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক মূল্য সূচক কমেছে ১শ’ ৮৯ পয়েন্ট। বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ৯০ কোটি ৬৬ লাখ টাকা। লেনদেন অংশ নেওয়া ৩শ’টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৮৬টির দাম বেড়েছে। বিপরীতে ১শ’ ৮৭টির দাম কমেছে এবং ২৭টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।