নিজেদের দেশে কোপা আমেরিকা খেলতে চান না নেইমার-ক্যাসেমিরোরা

মিরর স্পোর্টস : আসন্ন কোপা আমেরিকা নিয়ে অনিশ্চয়তা যেন কাটছেই না। বারবার চলে আসছে ভেন্যু বদলের প্রসঙ্গ। সবশেষ নির্ধারণ করা হয়েছিল, ব্রাজিলের মাটিতে হবে এবারের কোপা আমেরিকার পুরো আসর। কিন্তু এখন সেটিও একপ্রকার অনিশ্চিতই বলা চলে।

শুরুতে কোপা আমেরিকার যৌথ আয়োজক ছিল কলম্বিয়া ও আর্জেন্টিনা। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ও রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে শুরুতে নিজেদের নাম সরিয়ে নেয় কলম্বিয়া। পরে করোনার কারণে আর্জেন্টিনাও অপারগতা প্রকাশ করে কোপা আয়োজনে।

তাই সবশেষ ঠিক করা হয়, ব্রাজিলেই হবে কোপা আমেরিকার সব খেলা। কিন্তু বাস্তবতা বলছে, আর্জেন্টিনা-কলম্বিয়ার চেয়েও ব্রাজিলের করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ। মূলত দেশটির সরকার ছাড়া আর কেউই চায় না সেখানে কোপা হোক। এমনকি খেলোয়াড়রাও নিজেদের দেশে কোপা আমেরিকার পক্ষে নন।

শনিবার ভোরে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচে ইকুয়েডরকে ২-০ গোলে হারানোর পর সরাসরিই এ কথা জানিয়েছেন ব্রাজিল ফুটবল দলের অধিনায়ক ক্যাসেমিরো। আগামী মঙ্গলবার প্যারাগুয়ের বিপক্ষে ম্যাচের পর এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিক মন্তব্য করার কথাও জানিয়েছেন তিনি।

ক্যাসেমিরো বলেছেন, ‘ব্রাজিলে কোপা আমেরিকার ব্যাপারে আমাদের অবস্থান সবাই জানে। এর চেয়ে পরিস্কার করার কিছু নেই। আমরা প্যারাগুয়ের বিপক্ষে ম্যাচের পর নিজেদের মতামত তুলে ধরব।’

এসময় তিনি জানান, শুধু ইউরোপিয়ান ক্লাবে খেলা ফুটবলাররাই নয়, ব্রাজিলে কোপা আমেরিকা না করার পক্ষে জাতীয় দলের সবাই। এমনকি দলের কোচ তিতেও রয়েছেন খেলোয়াড়দের পক্ষে।

এদিকে ব্রাজিলের গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, দেশটির জনগণও চায় না করোনাভাইরাসে এমন পরিস্থিতির মধ্যে ফুটবলের এত বড় একটা আসর হোক তাদের দেশে। ব্রাজিল থেকে কোপা আমেরিকা সরিয়ে নেয়ার জন্য এরই মধ্যে কয়েক দফা আন্দোলনও হয়ে গেছে সেখানে।

উল্লেখ্য, আগামী ১৩ জুন বাংলাদেশ সময় দিবাগত রাত থেকে শুরু হওয়ার কথা রয়েছে কোপা আমেরিকা। অর্থাৎ অল্পসময়ের মধ্যেই সবকিছু চূড়ান্ত করতে হবে লাতিন আমেরিকান ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা কনমেবলকে।