অনুতপ্ত অর্থমন্ত্রী!

অর্থনতি রিপোর্ট : অতীতের বাজেটে বেশি মুনাফা করা ব্যবসায়ীদের ওপর বেশি করারোপ করা নিয়ে অনুশোচনা প্রকাশ করেছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। কালো টাকা সাদা করার সুযোগ না রাখার বিষয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘যারা সীমিত সম্পদকে এক্সপ্লয়েড করে ম্যাক্সিমাম আয় করবে তাদের বেশি সুযোগ করে দেওয়া উচিত ছিল। সেটা না করে যারা বেশি আয় করেছিল তাদের আরও বেশি কর চাপিয়ে দেওয়া হয়েছিল। এটা ঠিক নয়।’

শুক্রবার (৪ জুন) ভার্চুয়ালি ২০২১-২০২২ অর্থবছরের বাজেটোত্তর সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক উপদেষ্টা ড. মসিউর রহমান, কৃষিমন্ত্রী ড. আবদুর রাজ্জাক, পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান, বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির, অর্থ সচিব আব্দুর রউফ তালুকদার, পরিকল্পনা কমিশনের সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের সদস্য শামসুল আলম ভার্চুয়ালি যুক্ত ছিলেন।

অতীতের অভিজ্ঞতা নিয়ে এবারের বাজেট করা প্রসঙ্গে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা অতীতের বিষয়গুলো দেখে যতটা সম্ভব হয়েছে এবারের বাজেট খোলামেলাভাবে সুন্দর ও সহজ করে আরও সর্বজনীন করার চেষ্টা করেছি।’

আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, ‘কালো টাকা নিয়ে আমি কখনও কথা বলিনি। আমাদের বাজেটে আমরা যেই প্রভিশনটি রেখেছিলাম তা হলো অপ্রদর্শিত আয়। কালো টাকা এবং অপ্রদর্শিত আয়ের মধ্যে ব্যাপক পার্থক্য। কালো টাকা দুর্নীতির মাধ্যমে সৃষ্টি হয়, আর অপ্রদর্শিত টাকাটা আমাদের সিস্টেমের কারণে সৃষ্টি হয়। ট্যাক্সের টার্গেট করা হয় ৫০ শতাংশ থেকে ৬০ শতাংশ। এটা অনেক অন্যায় করা হয়েছে। বিশেষ করে ব্যবসায়ীদের সঙ্গে। এখানে কোনও একসময় ছিল সুপার ইনকাম ট্যাক্স, যারা বেশি ইনকাম করবে তাদের আরও বেশি ট্যাক্স দিতে হবে। অথচ উল্টোটা হওয়া উচিত ছিল।’