দিনাজপুর সদরে করোনা শনাক্তের হার ৩৬.৯৮ শতাংশ

স্টাফ রিপোর্টার, দিনাজপুর : করোনা শনাক্তের হার ও মৃত্যুর সংখ্যা মারাত্মকভাবে বেড়েছে দিনাজপুর সদর উপজেলায়। এই উপজেলায় সর্বশেষ শুক্রবার (৪ জুন) করোনা শনাক্তের হার ৩৬ দশমিক ৯৮ শতাংশ।

সিভিল সার্জন কার্যালয়ের হিসাব বলছে, প্রতিদিন জেলার ১৩টি উপজেলাতে যে পরিমাণে মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয় তার অর্ধেকেরও বেশি পরিমাণ সদর উপজেলায়। গত দশ দিনের হিসাবে দেখা গেছে, জেলার ১৩টি উপজেলায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ২শ’ ২৮ জন, যার মধ্যে সদর উপজেলাতে ১শ’ ৬৮ জন। অর্থাৎ মোট আক্রান্তের ৭৩ দশমিক ৬৯ শতাংশ সদর উপজেলাতেই।

এখন পর্যন্ত দিনাজপুর জেলায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১শ’ ৩১ জন, যার মধ্যে শুধু সদর উপজেলাতে রয়েছেন ৬৩ জন। অর্থাৎ মোট মৃত্যুর ৪৮.০৯ শতাংশই সদর উপজেলায়। বাকি ১২টি উপজেলায় ৫১.৯১ শতাংশ। এখন পর্যন্ত এই জেলায় করোনা শনাক্ত হয়েছে ৫ হাজার ৯শ’ ২৫ জনের। যার মধ্যে শুধু সদর উপজেলাতেই ৩ হাজার ৩শ’ ৩৮ জন। শনাক্তের ৫৬.৩৪ শতাংশই সদরে।

দিনাজপুর সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার এই জেলায় মোট নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ১৪০টি আর শনাক্ত হয়েছে ৩২টি। করোনা শনাক্তের হার ২২.৮৫ শতাংশ। এর মধ্যে সদর উপজেলার নমুনা ছিল ৭৩টি আর শনাক্ত হয়েছে ২৭টি। অর্থাৎ এই উপজেলায় শনাক্তের হার ৩৬.৯৮ শতাংশ। এর আগে বৃহস্পতিবার এই উপজেলায় করোনা শনাক্তের হার ছিল ৪৮.৩৩ শতাংশ। ওইদিন সদর উপজেলায় করোনার নমুনা পরীক্ষা হয় ৬০টি। এর মধ্যে শনাক্ত হয় ২৯টি। ওইদিন পুরো জেলায় করোনার পরীক্ষা হয়েছিল ১শ’ ৪০টি এবং শনাক্ত হয়েছিল ৩৫টি। শনাক্তের হার ছিল ২৫ শতাংশ।

সদর উপজেলায় করোনার শনাক্তের হার বাড়ার বিষয়ে কথা হলে সিভিল সার্জন ও করোনা প্রতিরোধ কমিটির সদস্য সচিব ডা. আব্দুল কুদ্দুছ বলেন, ‘এখনও সদর উপজেলা লকডাউনের সময় হয়নি, দেরি আছে।’