লাল-সবুজের জার্সিতে বিশ্বকাপে অভিষিক্ত হবার অপেক্ষায় তারিক কাজী

মজিবর রহমান : ফিফা ওয়ার্ল্ড কাপ কাতার ২০২২ ও এএফসি এশিয়ান কাপ চায়না ২০২৩ (প্রিলিমিনারি জয়েন্ট রাউন্ড -২)-এর খেলা উপলক্ষ্যে এখন কাতারে অবস্থান করছে বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের সঙ্গে। আগামী ৩ জুন আফগানিস্তানের সঙ্গে প্রথম ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ।

বাংলাদেশ দলের হয়ে অভিষেক হবার অপেক্ষায় আছেন ফিনল্যান্ড প্রবাসী ডিফেন্ডার তারিক কাজী। তিনি এক ভিডিও বার্তায় বলেছেন, আমরা এখানে (কাতারে) এসে খুব ভালভাবে অনুশীলন করছি। আগামী ৩ জুন প্রতিপক্ষ আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে খেলতে আমরা মুখিয়ে আছি। ভারতের বিরুদ্ধেও ম্যাচটি হবে অনেক উত্তেজনাকর। প্রতিটি খেলাতেই আমরা নিজেদের শতভাগ নিংড়ে দেয়ার আপ্রাণ চেষ্টা করবো। আমিও দেশের লাল-সবুজ জার্সিতে অভিষিক্ত হবার জন্য রোমাঞ্চিত বোধ করছি। যদি খেলার সুযোগ পাই, তাহলে দলকে ভাল ফল এনে দেয়ার চেষ্টা করবো। এজন্য সবার কাছে দোয়া চাচ্ছি।

আরেক ভিডিও বার্তায় জাতীয় দলের ফিজিও ফুয়াদ হাসান হাওলাদার বলেন, কাতারে আসার পর এখন পর্যন্ত দলের কোন খেলোয়াড়দের এখনও ইনজুরিতে পড়তে দেখিনি। ২৪ ফুটবলারদের আলহামদুলিল্লাহ্ সবাই সুস্থ আছে। সবাই ভালভাবে অনুশীলন করছে। আশা করি তারা দেশের জন্য ভাল কিছু বয়ে আনতে পারবে।

কাতার পোঁছে উইঙ্গার মোহাম্মদ ইব্রাহিম বলেন, আমি ঠিকমতোই কাতার এসে পৌঁছেছি। পৌঁছেই কোভিড টেস্ট করিয়ে নেগেটিভ হয়ে ইতোমধ্যেই দলের সঙ্গে যোগ দিয়েছি। আমাদের তিনটি ম্যাচ খেলতে হবে আফগানিস্তান, ভারত ও ওমানের বিরুদ্ধে। সবাই আমাদের জন্য দোয়া চাইবেন। বাফুফে এবং আমার ক্লাবকে (বসুন্ধরা কিংস) অনেক ধন্যবাদ, অসুন্থ থাকাকালীন তারা আমাকে সবসময়ই সাহায্য-সহযোগিতা করেছে। তিনটি ম্যাচেই যেন ভাল করে আমরা দেশে ফিরতে পারি, সেজন্য সবাই আমাদের জন্য দোয়া করবেন। মেন্টালি এবং ফিজিক্যালি আমি ঠিক আছি। মঙ্গলবার টিমের সঙ্গে যোগ দিয়ে অনুশীলন করেছি এবং হার্ডওয়ার্ক করে টিমে ইন করার ট্রাই করবো।

জাতীয় দলের গোলরক্ষক কোচ লেস ক্লিভলি বলেন, ছেলেরা কঠোর পরিশ্রম করছে। তাদের সামনে কঠিন তিন ম্যাচ। গোলরক্ষকদের পেছনে অনেক কথা হয়। মনোযোগ ধরে রাখা কঠিন। নতুন গোলরক্ষক এসেছে, কারণ চোটে আছে। সে (রাসেল মাহমুদ লিটন) কঠিন পরিশ্রম করছে। আমরা চ্যালেঞ্জ নিতে তৈরি। ছেলেরা জিম-কন্ডিশনিং নিয়ে অনেক পরিশ্রম করছে। আশা করছি বাংলাদেশ ইতিবাচক কোন ফলই দিতে পারবে।