ছোট ভাইকে হত্যার পর লাশ গাছে ঝুলিয়ে রাখার অভিযোগ

চিরিরবন্দর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি : দিনাজপুরের চিরিরবন্দও উপজেলা পল্লীতে জমি নিয়ে বিরোধে বড় ভাইয়ের বিরুদ্ধে ছোট ভাই ইয়াকুব আলীকে (৪২) শ্বাসরোধে হত্যার পর গাছে ঝুলিয়ে রাখার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনার পর থেকে বড় ভাই জাবেদ আলী পলাতক রয়েছেন।

বুধবার (২ জুন) সকালে উপজেলার ফতেজংপুর ইউনিয়নের উত্তর পলাশবাড়ীর একটি আম গাছ থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত ইয়াকুব উপজেলার এলাকার মৃত মোহাম্মদ আলীর ছেলে।

নিহত ইয়াকুপের স্ত্রী আর্জিনা বেগম জানান, ভাসুর জাবেদ আলীর সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে জমি ভাগাভাগি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল তার স্বামীর। এর আগেও জাবেদ ও তার জামাই মিলে ইয়াকুবকে কয়েকবার পিটিয়ে আহত করেছিল। এ বিষয়ে থানায় মামলাও করা হয়। আর্জিনা বেগমের অভিযোগ, মঙ্গলবার রাতে বাড়িতে ফেরার সময় রাস্তায় জাবেদ আলী লোকজনসহ ইয়াকুব আলীকে আটক করে শ্বাসরোধে হত্যা করেন। এরপর জাবেদের বাড়ির সামনের একটি আম গাছের সঙ্গে মরদেহ ঝুলিয়ে রাখা হয়।

চিরিরবন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সুব্রত সরকার জানান, সকালে স্থানীয়দের তথ্যের ভিত্তিতে ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করা হয়। ইয়াকুব আলীকে শ্বাসরোধে হত্যা করে গাছে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। ময়না তদন্তের জন্য মরদেহ দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। তিনি জানান, নিহতের বড় ভাই জাবেদ আলী ঘটনার পর থেকে পলাতক রয়েছেন। এ ব্যাপারে মামলা দায়ের হয়েছে।