জিয়ার মৃত্যুবার্ষিকীর কর্মসূচিতে শাড়ি-খাবার নিয়ে হট্টগোল

ঢাকা : বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত জিয়াউর রহমানের ৪০তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে দুস্থদের মাঝে ত্রাণ বিতরণের সময় হট্টগোলের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস।

জিয়ার মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বিএনপি ও দলটির বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের পক্ষ থেকে ১৫ দিনব্যাপী কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়। এরই অংশ হিসেবে নয়াপল্টনে ত্রাণ ও রান্না করা খাবার বিতরণ করা হয়। কিন্তু এই কর্মসূচি পালনকালে মানা হয়নি করোনা প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি। শুধু তাই নয়, অনুষ্ঠানে শৃঙ্খলা না থাকায় ত্রাণ নিতে আসা অসহায় ও দুস্থদের মধ্যে ঝগড়া-বিবাদে লিপ্ত হতে দেখা যায়।

সোমবার (৩১ মে) পল্টন থানা বিএনপির পক্ষ থেকে চাল-ডাল, পল্টন থানা যুবদলের পক্ষ থেকে শাড়ি-লুঙ্গি ও ঢাকা মহানগর ছাত্রদল পশ্চিমের পক্ষ থেকে রান্না করা খাবার বিতরণ করা হয়। তিনটি অনুষ্ঠানেই প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস।

ত্রাণ নিতে আসা ছকিনা খাতুন, শামসুর নাহার ও বেলাল হোসেনসহ কয়েকজন নিজেদের মধ্যে ঝগড়া-বিবাদে লিপ্ত হন। কারণ জানতে চাইলে ছকিনা খাতুন বলেন, ‘আমার শাড়ি নিয়ে গেছে। খাবারটা টানাটানি করে ছিঁড়ে ফেলেছে তারা দুইজন। এ নিয়ে ঝগড়া।’

যদিও শাড়ি নেয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেন শামসুর নাহার। তিনি বলেন, ‘আমার শাড়ি আমি নিয়েছি। তার শাড়ি কেন আমি নেব। ওই শাড়িটা আমাকে দিয়েছে। কিন্তু সে সেটা তার বলে দাবি করছে।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিএনপির সাংগঠনিক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা সর্বাত্মক চেষ্টা করেছি শৃঙ্খলা বজায় রাখতে। দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া এবং মানুষের ভিড় বেশি হওয়ায় হুড়াহুড়ি হয়েছে। পরবর্তীতে আমরা সুন্দরভাবে ত্রাণ বিতরণ করেছি।’