মামুনুলকে নিয়ে লন্ডনে বসে গুজব রটাচ্ছেন ওলামা দলের এক নেতা

মিরর ডেস্ক : হেফাজতের যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হককে নগ্ন করে নির্যাতন করা হচ্ছে দাবি করে যুক্তরাজ্য থেকে ফেসবুক ও ইউটিউবে গুজব ছড়াচ্ছেন ওলামা দলের নেতা শামীম আহমেদ। ফেসবুকে তিনি কখনো যুক্তরাজ্য ও বরগুনার ওলামা দলের নেতা ও বিএনপির সহ ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে পরিচয় দিচ্ছেন। হেফাজত নেতাদের পক্ষ নিয়ে নানা ধরনের গুজব অনলাইন প্লাটফর্মে ছড়ানোর ঘটনায় শনিবার রমনা থানায় তার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়েছে। মামলার বাদী হয়েছেন ডিবির সাইবার অ্যান্ড স্পেশাল ক্রাইম ইউনিটের এসআই আসিফ ইকবাল।

শামীম তার নিজ ফেসবুক, জুনায়েদ আহমেদ নামের আরেকটি আইডি ও বিডি এসকে মিডিয়া নামের ইউটিউব চ্যানেল থেকে এসব লাইভ সম্প্রচার করেন শামীম। সেখান থেকে ভয়ঙ্কর গুজব ছড়ান তিনি। শামীম দাবি করেন- ‘মামুনুলকে সেহরী খেতে দেয়নি। পানির পরিবর্তে প্রসাব দিয়েছিল। তাকে মেরে রক্তাক্ত করেছিল। মামুনুলকে হিন্দু পুলিশ অফিসার দিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।’ এছাড়া পবিত্র কোরআন শরীফ ও তসবিহ নিয়ে মিথ্যাচার করে উত্তেজনা ছড়ানোর চেষ্টা চালান শামীম। তার দাবি ছিল- ‘পবিত্র ধর্মগ্রন্থ কোরআন ও তসবি টয়লেটে ফেলে দেওয়া হয়েছে।; যদিও ভিডিও বক্তব্যগুলোতে তার কথায় অসংলগ্নতা স্পষ্ট। এসব দাবির সপক্ষে কোন প্রমাণও দেখাতে পারেননি তিনি।’

মামলায় বলা হয়, আক্রমণাত্মক ও মিথ্যা উস্কানিমূলক বক্তব্য দিয়ে ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের মূল্যবোধ ও অনুভূতিতে আঘাত হেনেছেন তিনি। পুলিশের নামে মিথ্যা তথ্য দিয়ে দেশের সামগ্রিক আইন-শৃঙ্খলার অবনতি ও ঘৃণা সৃষ্টি করে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট এবং দেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা করা হয়। ২০১৮ সালের ২১ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ব্রিটেনে অবস্থানকালীন সময়ে যুক্তরাজ্য বিএনপির প্রতিবাদ কর্মসূচিতেও সরব ছিলেন শামীম। ওই সময় ভাইরাল হওয়া একটা ভিডিওতে যুক্তরাজ্য বিএনপি সভাপতি এম এ মালেক ও সাধারণ সম্পদক এম কাওসার আহামেদের মাঝখানে দাঁড়িয়ে মাইক হাতে স্লোগান দিতে দেখা গেছে, সেই ভিডিওটিও ভাইরাল হয়েছিল।

২০১৩ সালে যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবিতে আন্দোলনের সময়, লন্ডনে জামায়াত ও হেফাজতের প্রতিবাদ সমাবেশে শামীমকে দেখা যেত। তখন থেকেই বিএনপির সঙ্গে সখ্যতা গড়ে তুলেন, পরবর্তীকালে বিএনপির বিভিন্ন সভা সমাবেশে কোরআন তিলাওয়াতের জন্য ডাক পড়ত শামীমের। লন্ডনে তারেক রহমানের নানা কর্মসূচির শুরুতে কোরআন তিলাওয়াত করে শামীম নিজেকে বিএনপির নেতা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছেন বলে জানা যায়। শামীম স্বপ্ন দেখেন বরগুনার পাথর ঘাটা এলাকা থেকে আগামীতে নির্বাচন করবেন এবং সেই লক্ষ্যে তিনি প্রচারণাও করে যাচ্ছেন।

মাওলানা শামীম বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলার পাথরঘাটা সদর ইউনিয়নের হাড়িটানা গ্রামের আবদুল জব্বার মুন্সির ছেলে। তিনি পিরোজপুর জেলার মঠবাড়িয়া উপজেলার সাপলেজা এলাকার একটি মাদ্রাসা থেকে দাখিল ও আলিম পাস করেন।