‘আমাদের পরিবারকে রাজনীতি থেকে সরিয়ে দেওয়ার নীল নকশা করেছে’

মিরর ডেস্ক : বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা বলেছেন আজকে এই নোয়াখালী ও ফেনীতে আমার পরিবারকে রাজনীতি থেকে সড়িয়ে দেওয়ার জন্য যড়যন্ত্রের একটা নীল নকশা তৈরি করেছে। সেই নীল নকশা মোতাবেক ইতিমধ্যে কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

শনিবার রাত সাড়ে ৯টায় নিজের অনুসারী স্বপন মাহমুদের ফেসবুক আইডি থেকে ঘণ্টাব্যাপী লাইভে এসে তিনি এসব কথা বলেন।

মেয়র আবদুল কাদের মির্জা বলেন, নোয়াখালীর এমপি একরামুল করিম চৌধুরী এখন দুবাইতে অবস্থান করতেছে। দুবাই যাওয়ার আগে অপরাজনীতির হোতা একরাম, নিজাম দুর্নীতিবাজ সচিব প্রশাসনের পক্ষ থেকে একটি রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেছে। সে বৈঠকে তারা সিদ্ধান্ত নিয়েছে ওবায়দুল কাদেরসহ আমাদের পরিবারকে রাজনীতি থেকে সড়াবে এবং আমি, আমার ছেলে ও আমার ছোট ভাই শাহাদাতকে তারা হত্যা করবে। এই পরিকল্পনা নিয়ে নোয়াখালীর একরাম এখানকার কুলাঙ্গার বাদলকে (সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান) তাদের পরিকল্পনার কথা জানিয়ে বলেছে তোমরা বৈঠক করে তোমাদের পরবর্তী সিদ্ধান্ত গ্রহণ করো।

তিনি আরো বলেন, বাদল মাদক সম্রাট মঞ্জুর (ওবায়দুল কাদেরের ভাগ্নে) বাসায় এখানকার সব অস্ত্রধারী কুলাঙ্গারদের নিয়ে বৈঠক করেছে। তারা বৈঠক করে কানা মঞ্জুকে (ওবায়দুল কাদেরের ভাগ্নে) দলের মুখপাত্র করেছে। সে মুখপাত্র না হওয়ার চেষ্টা করেছে। তারপর একরামুল চৌধুরী তাকে ৫ লাখ টাকা দেওয়ার পর সে মুখপাত্র হওয়ার সম্মতি দিয়েছে। তারপর সেখানে সিদ্ধান্ত হয়েছে আমি, আমার ছেলে ও আমার ছোট ভাইকে হত্যা করবে। আর ওবায়দুল কাদেরের রাজনীতি এই নোয়াখালীতে চিরদিনের জন্য নির্বাসনে পাঠাবে। এটার মূল কারণ হচ্ছে একরাম সাহেবের কাছে খবর এসেছে উনি আর জেলা আওয়ামী লীগের সেক্রেটারী নাই এবং নিজাম হাজারী খবর পেয়েছেন আগামী পার্লামেন্ট নির্বাচনে উনি আর মনোনয়ন পাচ্ছেন না।