বাংলা দখলে নিতে পুরো দেশ ধ্বংস করছেন মোদি: মমতা

সুজিত বোস, কোলকাতা : পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অভিযোগ করেছেন, বাংলা দখলে নিতে গিয়ে পুরো দেশকে ধ্বংস করে দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। একই অভিযোগ করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর বিরুদ্ধেও। তিনি বলেছেন, করোনা বিপর্যয়ের জন্য তারাই দায়ী। তাদের পদত্যাগ দাবি করছি।

শনিবার বোলপুরে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন মমতা। তিনি আরও অভিযোগ করেন, পশ্চিমবঙ্গে নির্বাচন হচ্ছে বিজেপির কথায়। নির্বাচন প্রক্রিয়া নিরপেক্ষ করার দাবি নিয়ে তাদের বিরুদ্ধে আমি সুপ্রিম কোর্টে যাব।

সংবাদ সম্মেলনে মমতা দাবি করেন, উপমুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুদীপ জৈন, রাজ্যের বিশেষ পুলিশ পর্যবেক্ষক বিবেক দুবের সঙ্গে রাজ্যের জেলা শাসক ও পুলিশ সুপারদের হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট তার হাতে এসেছে। সেখানেই নানা ‘আপত্তিজনক’ কথা রয়েছে। ওই হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটে যে কথোপকথন হয়েছে, তাতে ‘টিএমসি গুনস’, ‘ট্রাবল মঙ্গার’ বলে তৃণমূল কর্মীদের কথা বলা হয়েছে। বিভিন্ন জায়গায় তৃণমূল কর্মীদের ভোটের আগের দিন থেকেই পুলিশ থানায় আটকে রাখছে।

তিনি বলেন, ‘কমিশন ফোন করে নির্দেশ দিচ্ছে, আমাদের দলের নেতাদের নির্বাচনের আগে গ্রেপ্তার করে নিতে। আমার কাছে সবকিছুর হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট আছে। আমার কাছে যা প্রমাণ আছে, আমি ঠিক করেছি, নির্বাচনের পরে সুপ্রিম কোর্টে যাব।’

মমতা অভিযোগ করেছেন, কমিশনের কারণে পশ্চিমবঙ্গে করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি পেয়েছে। তিনি বলেন, ‘কমিশনের কাছে আমরা কোনো অভিযোগ জানিয়ে বিচার পাচ্ছি না। বিজেপির কথা শুনে ভোট করানোর জন্যই করোনা সংক্রমণ এত বাড়ল। আট ধাপে ভোট গ্রহণ না হলে এমন সংকট তৈরি হতো না।’ শুধু কমিশন নয়, রাজ্যে কয়েকজন জেলা শাসক ও পুলিশ সুপার ‘তাঁবেদারি’ করছে বলেও অভিযোগ করেছেন মমতা।

তিনি আরো বলেন, ‘এখানে কিছু ডিএম, এসপিরাও তাঁবেদারি করছেন। আমি স্পষ্ট বলতে চাই, কোন নির্দেশে কী কাজ চলছে, সব খবর আমার কাছে আছে। এমন করছেন যেন বিজেপি ক্ষমতায় এসে গেছে। নির্বাচন কমিশন যেন বিজেপির আয়না।’

প্রধানমন্ত্রী মোদি ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে আক্রমণ করে মমতা বলেন, তারা আত্মনির্ভর ভারতের কথা বলতেন। অথচ দিল্লিতে অপিজেনের অভাবে ২০ জন মারা গেল। এত আত্মনির্ভর ভারত যে, গ্যাস নেই, স্যালাইন নেই, ওষুধ নেই। বাংলায় নির্বাচন করতে এসে ধ্বংস করে দিয়েছে গোটা ভারতকে।

মমতা বলেন, ভারতে ওয়ান নেশন ওয়ান লিডার বলছেন যারা, তারা ভ্যাকসিনের জন্য আলাদা আলাদা দাম ধার্য করেছেন কেন? কেন্দ্র যে ভ্যাকসিন ১৫০ টাকায় কেনে সেই ভ্যাকসিন ৪০০ টাকায় কিনতে হচ্ছে কেন? তাদের মাথাব্যথা শুধু গুজরাট ও উত্তর প্রদেশ নিয়ে।

মুখ্যমন্ত্রী আরও অভিযোগ করেন, ‘কমিশনের কাছে আমরা কোনো বিচার পাচ্ছি না। বিজেপির কথা শুনে নির্বাচন কমিশন ভোট করায় করোনা এতটা বেড়েছে। কমিশন সব নিষিদ্ধ করার পরও তারা সভা করেছে। বিজেপির কথা শুনে আট ধাপে নির্বাচন না করলে করোনা বিপর্যয় হতো না।’

‘মুর্শিদাবাদে ভোট লুট করতে বহরমপুরে রাতে থাকছেন মমতা’ :পশ্চিমবঙ্গ কংগ্রেসের সভাপতি অধীর চৌধুরী অভিযোগ করেছেন, মুর্শিদাবাদে ভোট লুট করতে বহরমপুরে রাতে থাকছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা। এ নিয়ে নির্বাচন কমিশনে অভিযোগও করেছেন তিনি। তাতে তিনি লিখেছেন, ‘মুখ্যমন্ত্রী বহরমপুরে রাত্রিবাস করে ভোট লুটের পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করবেন। এ ক্ষেত্রে তিনি প্রভাব খাটিয়ে সরকারি আধিকারিকদের নির্দেশ দেবেন। সঙ্গে তৃণমূলের গুণ্ডাবাহিনীকেও মুর্শিদাবাদ জেলাজুড়ে ভোট লুট করার নির্দেশ দেবেন।’ তবে অধীর চৌধুরীর এ অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস।

বীরভূমে তারাপীঠ মন্দিরে পূজার ভিড় : আগামী ২৯ এপ্রিল শেষ ধাপে বীরভূম জেলার সব আসনে ভোট হবে। সেখানে প্রচারের চোখ রাজ্যের সব দলের নেতাদের। প্রচার কর্মসূচির মধ্যেই তাদের কেউ কেউ পৌঁছেছেন তারাপীঠের মন্দিরে। দিচ্ছেন পূজাও। সেই তালিকায় রয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় থেকে বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়।