সুশান্তের বায়োপিকে নিষেধাজ্ঞা, নির্মাতাদের আদালতের নোটিস

মিরর বিনোদন : বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের বায়োপিক নির্মাতাদের নোটিস পাঠালো ভারতের দিল্লি উচ্চ আদালত। প্রয়াত অভিনেতার বাবা কেকে সিংয়ের নিষেধাজ্ঞার দাবিতে আদালত এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছেন বলে জানা গেছে।

সুশান্ত সিং রাজপুতের জীবন এবং মৃত্যুর তদন্ত প্রক্রিয়া নিয়ে ছবি তৈরির কথা উঠেছে গত বছর থেকেই। ২০২০ সালের ১৪ জুন সুশান্তের বান্দ্রার আবাসনে তার ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়। তারপর থেকে উত্তাল গোটা ভারত। প্রশ্ন ওঠে, আসলেই কি অভিনেতার মৃত্যুর কারণ আত্মহত্যা? নাকি এমন সিদ্ধান্তের পিছনে রয়েছে কারও প্ররোচনা? একাধিক পরিচালক এই বিষয়ে চিত্রনাট্য লিখতে চেয়েছিলেন।

কিন্তু সুশান্তের পরিবার সে বিষয়ে আপত্তি জানাতে আদালতের দ্বারস্থ হল। প্রয়াত অভিনেতার বাবা কেকে সিং দিল্লি উচ্চ আদালতে সুশান্তের বায়োপিকে নিষেধাজ্ঞা জারি করার আবেদন জানালেন। তারই ভিত্তিতে নির্মাতাদের নোটিস পাঠালেন বিচারপতি মনোজ কুমার ওহরি।

যেখানে বলা হয়েছে, অভিনেতার ব্যক্তিগত জীবনের কোনও তথ্য প্রকাশ করা যাবে না। এতে অভিনেতা ও তার পরিবারের গোপনীয়তা রক্ষার মৌলিক অধিকার লঙ্ঘন করা হবে। সুশান্তের উত্তরসুরীদের অনুমতি ছাড়া কোনও ছবি বা লেখা প্রকাশ করা যাবে না।

সুশান্ত সিং রাজপুতের বাবার আবেদনে বলা হয়েছে, সুশান্তের মৃত্যু তদন্ত এখনও বিচারাধীন। যে ছবিটিকে নিষেধ করার কথা বলা হয়েছে, তা আদতে ঘটনার সাক্ষী এবং তদন্তকারী কর্মকর্তাদের প্রভাবিত করতে পারে। এমনকি জনসাধারণের মানসিকতায় প্রভাব ফেলতে পারে। কারণ আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়ায় অভিযুক্তের ঘনিষ্ঠরাই এই ছবির পিছনে রয়েছেন বলে সুশান্তের বাবা মনে করছেন।

আবেদনপত্রের দাবি, অত্যন্ত পরিকল্পিতভাবেই এই ছবিটি বানানো হচ্ছে। কেকে সিংয়ের আইনজীবী অক্ষয় দেব বলেছেন, বিচারাধীন তদন্তকে যাতে প্রভাবিত না করতে পারে, তাই কোনও প্রকার ছবি বা বই প্রকাশের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি করতে চায় সুশান্তের পরিবার।