বাণিজ্যিক টিকা যথাসময়ে আসবে, আশা রাষ্ট্রপতির

ঢাকা : ৩২ লাখ ভ্যাকসিন উপহার দেয়ায় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। পাশাপাশি যেসব টিকা বাণিজ্যিক ভিত্তিতে আসার কথা, সেগুলো যথা সময়ে আসবে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি।

শনিবার (২৭ মার্চ) রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের সঙ্গে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সৌজন্য সাক্ষাত হয়।

সন্ধ্যা সাতটার দিকে বঙ্গভবনে পৌঁছান নরেন্দ্র মোদি। এ সময় বঙ্গভবনে আবদুল হামিদ তাকে ফুল দিয়ে অভ্যর্থনা জানান। পরে ক্রেডেনশিয়াল হলে দুই নেতার বৈঠক হয়। সাক্ষাৎ শেষে পরিদর্শন বইতে সই করেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী।

এ বিষয়ে গণমাধ্যমে বিস্তারিত তথ্য দিয়েছেন রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব মো. জয়নাল আবেদীন। তিনি বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক যোগাযোগ বৃদ্ধিতে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি। এসময় শুভেচ্ছা উপহার হিসেবে টিকা প্রদান করায় রাষ্ট্রপতি ভারত সরকারকে ধন্যবাদ জানান। এছাড়া বাণিজ্যিক ভিত্তিতে যেসব টিকা আসার কথা তা যথাসময়ে আসবে, বলেও আশা করেন তিনি।

এসময় ভারতের প্রধানমন্ত্রী বলেন, প্রতিবেশী দেশ হিসেবে বাংলাদেশকে ভারত সবসময় বিশ্বস্ত বন্ধু মনে করে। বাংলাদেশের উন্নয়ন-অগ্রগতিতে ভারত সব সময় পাশে থাকবে।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর অনুষ্ঠানে যোগ দেয়ায় নরেন্দ্র মোদিকে ধন্যবাদ জানান রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ। তিনি বলেন, এই সফর বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে ‘যুগান্তকারী মাইলফলক’ হিসেবে থাকবে।

এসময় বঙ্গবন্ধুকে গান্ধী শান্তি পুরস্কার দেয়ায় ভারতের সরকার ও জনগণকে ধন্যবাদ জানান রাষ্ট্রপতি। তিনি বলেন, এই পুরস্কার বিশ্ব মানবতা ও নিপীড়িত জনগণের গণতান্ত্রিক অধিকার প্রতিষ্ঠায় বঙ্গবন্ধুর আজীবন সংগ্রামের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শন।

মহান মুক্তিযুদ্ধে ভারতের সহযোগিতা ও সমর্থনের জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে আবদুল হামিদ বলেন, বর্তমান সরকার ভারতসহ প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ককে অগ্রাধিকার দেয়। ভারত আমাদের নিকটতম প্রতিবেশী এবং পারস্পরিক মর্যাদা, আস্থা ও বিশ্বাসের ভিত্তিতে একে অপরের বিশ্বস্ত বন্ধু।

এসময় বঙ্গভবনে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন, কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক, ভারতের নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল, পররাষ্ট্র সচিব হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা উপস্থিত ছিলেন।