মসজিদে যেসব কাজ নিষিদ্ধ

মিরর ডেস্ক : মসজিদ আল্লাহর ঘর। আল্লাহর পছন্দনীয় জায়গা। মুসলমান মাত্রই মসজিদের পবিত্রতা বজায় রাখবে। পরিষ্কারের প্রতি একান্ত খেয়াল রাখবে। মসজিদের শিষ্টাচারকে কলুষিত করে, এমন কোনো কাজ করা যাবে না। মসজিদে যেসব কাজ করা নিষিদ্ধ, এখানে সেগুলো উল্লেখ করা হলো।

মসজিদে আওয়াজ উঁচু করা

মসজিদ ইবাদতের স্থান। মসজিদে উঁচু আওয়াজ করে ইবাদতে বিঘ্ন ঘটানো যাবে না। হাদিসে এসেছে, ‘সায়িব ইবনু ইয়াজিদ (রা.) বলেন, আমি মসজিদে নববীতে দাঁড়িয়ে ছিলাম। এমন সময় একজন লোক আমার দিকে একটা কাঁকর নিক্ষেপ করল। আমি তাঁর দিকে তাকিয়ে দেখলাম যে তিনি উমর ইবনুল খাত্তাব (রা.)। তিনি বলেন, যাও, এ দুজনকে আমার কাছে নিয়ে এসো। আমি তাদের নিয়ে তাঁর কাছে এলাম। তিনি বলেন, তোমরা কারা? তারা বলল, আমরা তায়েফের অধিবাসী। তিনি বলেন, তোমরা যদি মদিনার অধিবাসী হতে, তবে আমি অবশ্যই তোমাদের কঠোর শাস্তি দিতাম। তোমরা দুজনে আল্লাহর রাসুল (সা.)-এর মসজিদে উচ্চৈঃস্বরে কথা বলছ!’ (সহিহ বুখারি, হাদিস : ৪৭০)

মসজিদে হারানো বস্তু খোঁজ করা

সাধারণত গ্রামের মসজিদে দেখা যায়, ব্যক্তির কোনো কিছু হারিয়ে গেলে মসজিদের মাইকে ঘোষণা করা হয়। মসজিদের মুসল্লিদের হারানো বস্তুর কথা জানানো হয়। অথচ রাসুল (সা.) বলেন, কেউ কোনো লোককে মসজিদের মধ্যে হারানো কোনো জিনিস খোঁজ করতে দেখলে যেন বলে, আল্লাহ করুন! তোমার জিনিস যেন তুমি না পাও। কারণ মসজিদ তো এ উদ্দেশ্যে তৈরি করা হয়নি।’ (সহিহ মুসলিম, হাদিস : ১১৪৭)

দুর্গন্ধযুক্ত খাবার খেয়ে মসজিদে প্রবেশ নিষিদ্ধ

মসজিদে মানুষ নামাজ আদায় করতে আসে। দুর্গন্ধযুক্ত কোনো খাবার খেয়ে মসজিদে প্রবেশ নিষিদ্ধ। পেঁয়াজ, রসুন, মুলা, বিড়ি, সিগারেট ও তামাকজাতীয় কোনো কিছু খেয়ে মসজিদে যাওয়া দূষণীয়। ইবনে উমর থেকে বর্ণিত, রাসুল (সা.) খায়বার যুদ্ধের সময় বলেন, যে ব্যক্তি এসব গাছের কোনো একটি খায়, অর্থাৎ রসুন বা অনুরূপ স্বাদ ও গন্ধের কোনো কিছু খায় সে যেন মসজিদে না আসে।’ (মুসলিম, হাদিস : ১১৩৫)

ইসলামী বিশেষজ্ঞরা বলেন, বিড়ি, সিগারেট ও তামাকজাতীয় সব বস্তু হারাম। আর তাতে রয়েছে উত্কট দুর্গন্ধ, যা পরিত্যাগ করা প্রত্যেক মুসল্লির জন্য অত্যাবশ্যক।

মসজিদে থুতু নিক্ষেপ

মসজিদ পবিত্র ও সুন্দর জায়গা। মসজিদে থুতু বা এজাতীয় কোনো কিছু ফেলা যাবে না। একান্ত যদি নামাজে কারো থুতু আসে, তাহলে সেটাকে হাতের কাপড় দিয়ে ঘষা দিতে হবে অথবা বাঁ পায়ের নিচে ফেলে ঘষতে হবে। আবু হুরায়রা বলেন, ‘রাসুল (সা.) একদিন মসজিদে কিবলার দিকে (কিবলার দিকের দেয়ালে) থুতু দেখতে পেলেন। তিনি তখন লোকদের কাছে এসে বলেন, তোমাদের কী হয়েছে যে তোমরা কেউ তার প্রভুর সামনে দাঁড়িয়ে থুতু নিক্ষেপ করো। কেউ তোমাদের সামনে দাঁড়িয়ে তোমাদের মুখের ওপর থুতু নিক্ষেপ করুক—এটা কি তোমরা পছন্দ করবে? তোমাদের কাউকে থুতু নিক্ষেপ করতে হলে সে যেন বাঁ দিকে পায়ের নিচে থুতু নিক্ষেপ করে। আর যদি এরূপ করার অবকাশ না পায় তাহলে যেন এরূপ করে। কাসিম ইবনু ইবরাহিম তা এভাবে করে দেখিয়ে দিলেন যে তিনি কাপড়ে থুতু ফেলেন এবং কাপড় ঘষেন।’ (মুসলিম, হাদিস : ১১১৫)