মেগান ইস্যুতে নীরবতা ভাঙ্গলো রাজপরিবার

মিরর ডেস্ক : অবশেষে ব্রিটিশ রাজবঁধু মেগান মার্কেলের সাক্ষাৎকার প্রসঙ্গে মুখ খুলেছে বাকিংহাম প্যালেস। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ব্রিটিশ রাণী এলিজাভেথের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে এ প্রসঙ্গে বলা হয়।

সিএএন ও এনবিসি নিউজ- রাণীর পক্ষ থেকে সেই বিবৃতিতে বলা হয়, ডাচেস অব সাসেক্স অর্থাৎ মেগান মার্কেলের উত্থাপিত বর্ণবাদের অভিযোগ গুরুত্বের সঙ্গে খতিয়ে দেখা হবে। রাজপরিবার এটি নিয়ে উদ্বিগ্ন।

এতে আরও বলা হয়, পুরো রাজপরিবার মেগান ও হ্যারির সঙ্গে ঘটে যাওয়া কয়েক বছরের ঘটনায় দুঃখিত। বিশেষ করে বর্ণবাদী আচরণের যে অভিযোগ উঠেছে এটি অত্যান্ত  গুরুতর। পারিবারিকভাবেই এটির সুরাহা করা হবে।

বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়, হ্যারি, মেগান ও আর্চি সব সময়ই পরিবারের অধিক প্রিয় সদস্য।

এই বিবৃতি প্রকাশের আগে মেগান-হ্যারির টিভি সাক্ষাৎকার নিয়ে বিশেষ বৈঠক ডাকে ব্রিটিশ রাজপরিবার।

সম্প্রতি মার্কিন উপস্থাপক অপরাহ উইনফ্রেকে সাক্ষাৎকার দেন হ্যারি ও মেগান। রবিবার (৭ মার্চ) টিভি চ্যানেল সিবিএস-এ তিন ঘণ্টার সাক্ষাতকারটি সম্প্রচারিত হয়। সেখানে ব্রিটিশ রাজপরিবারের অভ্যন্তরে বর্ণবাদ, নিজেদের মানসিক অবস্থা, সংবাদমাধমের চাপ ও রাজপরিবারের অন্য সদসদের নিয়ে কথা বলেছেন।

৩৯ বছর বয়সী মেগান মার্কেল বলেন তার সন্তান আর্চির ত্বকের রং কতটা কালো হবে তা নিয়েও রাজপরিবারে উদ্বেগ ছিলো। রাজ পরিবারের কারা এই ধরনের উদ্বেগের কথা বলেছিল,তা প্রকাশ করতে চাননি মেগান।