তৃণমূলে ছিলেন, তাই প্রায়শ্চিত্ত করতে কান ধরে ওঠবস পশ্চিমবঙ্গের নেতার

মিরর ডেস্ক : সামনেই ভারতের পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভার নির্বাচন। নির্বাচনকে সামনে রেখে সাম্প্রতিক কালে বহু নেতা-নেত্রী দলবদল করেছেন। নতুন দলে গিয়ে পুরোনো দলের প্রতি ক্ষোভও উগড়ে দিয়েছেন অনেকে। কিন্তু এবার যা ঘটল তা একেবারে অবিস্মরণীয়! রীতিমতো কান ধরে ওঠবস করলেন রাজ্যটির ক্ষমতাসীন দল তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়া এক নেতা। দীর্ঘদিন পুরোনো দলে থেকে হঠাৎ করেই ওই নেতার মনে হল তিনি ভুল করেছেন-আর সেই ভুলের প্রায়শ্চিত্ত করতেই প্রকাশ্য সভামঞ্চ থেকে কান ধরে ওঠবস!

আশ্চর্যজনক ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার বিকালে রাজ্যটির পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার খড়গপুর-২ ব্লকের গোপীনাথপুর এলাকায়। ওই সভাতেই হাজির ছিলেন রাজ্যের সাবেক মন্ত্রী তথা বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী। ওই সভাতেই বেশ কিছু তৃণমূল নেতা দল ছেড়ে বিজেপিতে নাম লেখান।

এমনই একজন হলেন খড়গপুর-২ নম্বর ব্লকের তৃণমূল কংগ্রেসের সম্পাদক সুশান্ত পাল। শুভেন্দুর হাত থেকে বিজেপির পতাকা হাতে নেওয়ার পর তাকে বক্তব্য রাখতে মাইক্রোফোন এগিয়ে দেন শুভেন্দু। এরপর বক্তব্য রাখার মাঝেই সকলকে অবাক করে দিয়ে মঞ্চে কান ধরে ওঠবস শুরু করেন। ঘটনার আকস্মিকতায় হতচকিত হয়ে পড়েন সভায় উপস্থিত সকলেই। এই ঘটনায় সভামঞ্চে হাসির রোলও ওঠে। এমনকি শুভেন্দু অধিকারীও হাসতে শুরু করেন। সুশান্তের এই অদ্ভুত আচরণ দেখে শুভেন্দু সহ বিজেপি নেতারা কিছুটা অস্বস্তিতেও পড়ে যান।

চার বার ওঠবস করার তৃণমূল কংগ্রেস ত্যাগী সুশান্ত জানান ‘১৯৯৮ সালে বিজেপির হাত ধরে এই ব্লকে দলের কর্মী ছিলাম। এই মাঠে সভা করেছিলাম। কিন্তু ২০০৫ সালে তৎকালীন বামফ্রন্ট সরকারকে হঠানোর জন্য তৃণমূলে যোগ দিয়ে যে অন্যায় করেছিলাম, আবার সেই পূণ্যভূমিতে ফিরে আমি সমস্ত মানুষের কাছে আমার এই অন্যায়ের জন্য কান ধরে ওঠবস করে আমার পাপের প্রায়শ্চিত্ত করছি।’ এদিনের মঞ্চ থেকে তৃণমূলকে দেউলিয়া করার অঙ্গীকারও নেন সুশান্ত।