পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের ওয়েবসাইট ও ই-মেইল হ্যাক করে দেশজুড়ে চিঠি

ঢাকা : জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের (এনসিটিবি) ইমেল ও ওয়েবসাইট হ্যাক করে মাধ্যমিক পর্যায়ের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কাছে ২০২২ সালের পাঠ্যবইয়ের চাহিদা চাওয়া হয়েছে। গত ৩ ফেব্রুয়ারি এনসিটিবির ইমেইলের মাধ্যমে জেলা, উপজেলা/থানা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের কাছে এই তথ্য চাওয়া হয়। একইসঙ্গে ওই চিঠিটি এনসিটিবির ওয়েবসাইটে আপ করে দেওয়া হয়।

এই ঘটনার পর ওয়েবসাইটে আপ করা এবং ই-মেইলে পাঠানো ওই চিঠি নকল (ফেক) বলে পত্র জারি করে এনসিটিবি। এনসিটিবির সচিব অধ্যাপক ড. মো. নিজামুল করিম স্বাক্ষরিত গত ১১ ফেব্রুয়ারি জারি করা পত্রটি মঙ্গলবার (২২ ফেব্রুয়ারি) মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে এনসিটিবি’র চেয়ারম্যান অধ্যাপক নারায়ণ চন্দ্র সাহা বলেন, ‘ওয়েবসাইট ও ই-মেইলে হ্যাক করে এই তথ্য চাওয়া হয়েছে। ব্যবস্থা নিতে সাইবার ক্রাইমে বিষয়টি জানানো হয়ছে।’

এনসিটিবির সচিব অধ্যাপক ড. মো. নিজামুল করিম স্বাক্ষরিত চিঠিতে জানানো হয়, ২০২২ শিক্ষাবর্ষের পাঠ্যবইয়ের চাহিদা অনলাইনে www.texbook.gov.bd/brs ঠিকানায় দাখিলের জন্য এনসিটিবির স্মারক নম্বর ব্যবহার করে গত ৩ ফেব্রুয়ারি [email protected] ইমেইল থেকে সব জেলা, উপজেলা/থানা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসে পাঠানো হয়। একইসঙ্গে ওই চিঠি এনসিটিবির ওয়েবসাইটে আপলোড করা হয়।

অনাকাঙ্ক্ষিতভাবে একই তারিখ ও স্মারক ব্যবহার করে কোনও ব্যক্তি উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ও ষড়যন্ত্রমূলকভাবে [email protected] ই-মেইল থেকে জেলা, উপজেলা/থানা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসে মেইল পাঠায়। ওই মেইলে ‘২০২২ শিক্ষাবর্ষের পাঠ্যপুস্তুকের চাহিদা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের নিজস্ব প্যাডে  ১৫ ফেব্রুয়ারির মধ্যে স্ক্যান করে/পিডিএফ ফরমেটে [email protected] ঠিকানায় পাঠানোর জন্য অনুরোধ করা হলো’ বলে উল্লেখ আছে, যা এনসিটিবি থেকে পাঠানো হয়নি।

চিঠিতে আরও বলা হয়, ২০২২ শিক্ষাবর্ষের পাঠ্যপুস্তুকের চাহিদা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান জেলা, উপজেলা/থানা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসে দাখিল করবেন। ইমেইলে এনসিটিবিতে পাঠানোর প্রয়োজন নেই। এ বিষয়ে দ্রুত সব জেলা, উপজেলা ও থানা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসে নকল (ফেক) পত্র পরিহার করাসহ ফেইক চিঠির আলোকে নেওয়া সব কার্যক্রম বন্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ করা হলো।