বিষময় বছরের শেষ সূর্য, বিদায় ২০২০

মিরর ডেস্ক : বছরের শেষ সূর্যাস্ত নতুন করে মনে করিয়ে দেয় অনেক কিছুই। ২০২০ সাল বিদায় নিচ্ছে। সমুদ্রের লোনা জলে গা ভাসানো আর বালুকা বেলায় দাঁড়িয়ে সুর্যাস্ত দেখার আনন্দ যেন লোভনীয় স্বপ্ন। আর সেই সূর্য যদি বছরের শেষ সূর্য হয়, তাহলে সূর্যাস্ত দেখার আনন্দ আরো বহুগুন বেড়ে যায়। বছরের শেষ সূর্যই হয়ে থাক না আগামীর পথচলার নতুন পাথেয়।

২০১৯ সাল পেরিয়ে যখন বিশ্ব আতসবাজির আলোতে নতুন ২০২০ কে আগমণ করছিলো, তখনো একটু আঁচও পাওয়া যায়নি যে আগামী বছর এভাবে আতঙ্ক ভরা। জীবন-মরণের লড়াইয়ের মধ্যে দিয়ে শুধুমাত্র বেঁচে থাকাটাই যে জরুরি হয়ে উঠবে সেটাই যেন বছর ধরে উপলদ্ধি করলো পুরো বিশ্বের মানুষ ৷ হারালো অনেক কিছু। প্রাপ্তিটা সামান্য।

চীন থেকে আগত করোনাভাইরাসের জেরে বিশ্বজুড়ে মৃত্যু মিছিল। সীমানার পর সীমানা স্তব্দ। ঘরে বসেই চললো অফিস, স্কুল। বিনোদন ভুলে মানুষ ঘরেই খুঁজেই পেলো স্বস্তির জায়গা। হাতে উঠলো স্যানিটাইজারের বোতল আর মুখে মাস্ক।

লকডাউন, কোয়ারেন্টিন, আইসোলেশন। এই তিন শব্দে অভ্যস্ত হয়ে গেলো বিশ্বের মানুষ। ফোনে ফোনেই চললো এ ওপারের, দূর-দূরান্তের সম্পর্ক। কেউ চাকরি হারালো। কেউ কেউ প্রিয়জন।

ভাচুর্য়াল বিশ্বের ওপর যে গোটা বছর নির্ভর করে রয়েছে মানুষ আর তাই তো সোশ্যাল মিডিয়াতেই সুখ-দুঃখকে ভাগ করে নিয়েছেন। নতুন শেখা রান্না থেকে প্রথমবার ঘর মোছার ভিডিও সবই পর পর আপলোড হয়েছে ফেসবুক, ট্যুইটার, ইনস্টাগ্রামে।

হোয়াটসঅ্যাপেই এসেছে জন্মদিন থেকে বিয়ের শুভেচ্ছা মেসেজ। পাশের পাড়ার বন্ধুর সঙ্গে ভিডিও কলে গ্রুপ আড্ডা।

শেষ হতে চলেছে বিশের এই বিষ বছর। করোনা থেকে মুক্ত হতে ভ্যাকসিনের অপেক্ষায় মানুষ, তারই মাঝে রূপ বদলে নতুন করোনা হাজির। অনিশ্চয়তা নিয়েই নতুন বছরে গোটা বিশ্ব পা রাখতে চলেছে। প্রার্থনা নতুন বছর হোক সুস্থ সূর্যোদয়ের বছর। সব বেড়াজাল ভেঙে যেন ফের হেসে উঠুক বিশ্ব। সুখের দিকে এগিয়ে যাওয়ার বছর হোক ২০২১। হোক সু-খবরের সূর্যোদয়।