২৭০০ কোটি টাকা ব্যয়ে পঞ্চগড়-বাংলাবান্ধা রেললাইন : রেলমন্ত্রী

পঞ্চগড় প্রতিনিধি : পঞ্চগড় থেকে বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর পর্যন্ত প্রায় ৪৭ কিলোমিটার নতুন রেলপথ নির্মাণের নকশা ও সমীক্ষা যাচাইয়ের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। নতুন এই রেলপথ নির্মাণে ব্যয় হবে প্রায় ২৭০০ কোটি টাকা বলে জানিয়েছেন রেলপথ মন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন। বুধবার দুপুরে পঞ্চগড় জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে পঞ্চগড় থেকে বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর পর্যন্ত রেললাইন সম্প্রসারণ বিষয়ে এক মতবিনিময় সভায় এ কথা জানান মন্ত্রী।

তিনি বলেন, প্রায় ৪৭ কিলোমিটার রেলপথে জগদল, ভজনপুর, তেঁতুলিয়া, তিরনইহাট ও বাংলাবান্ধায় স্টেশন নির্মাণ করা হবে। সেই সাথে চারটি ব্রিজ ও ১৪টি কালভার্ট নির্মাণ করা হবে। তার আগে ৮৬০ হেক্টর জমি অধিগ্রহণ করবে রেল। বাংলাবান্ধা পর্যন্ত রেল যোগাযোগ চালু হলে পঞ্চগড়ের আর্থ সামাজিক অবস্থার পরিবর্তন আসবে। সেই সাথে বাংলাদেশের সাথে ভারত, নেপাল ও ভুটানের ব্যবসা বাণিজ্যসহ যোগাযোগ ক্ষেত্রে নতুন দিগন্তের সূচনা হবে।

মন্ত্রী আরও বলেন, ১৯৬৫ সালে পাক ভারত যুদ্ধের পর ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের যে ৮টি পয়েন্টে রেল যোগাযোগ বন্ধ ছিল ইতোমধ্যে পাঁচটি চালু করা হয়েছে। শিগগিরই বাকি তিন ইন্টারসেকশন পয়েন্টও চালু করা হবে। রেল যোগাযোগের সক্ষমতাকে কাজে লাগিয়ে রেল ব্যবস্থাকে ঢেলে সাজাতে সারা দেশে পরিকল্পিতভাবে আধুনিক ও উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নয়ন করে চলেছে সরকার।

মতবিনিময় সভায় রেল বিভাগের প্রকল্প পরিচালক মো. আবু জাফর মিয়া পঞ্চগড়-বাংলাবান্ধা রেলপথের নকশা ও বিভিন্ন তথ্য প্রজেক্টরের মাধ্যমে উপস্থাপন করেন।

জেলা প্রশাসক ড. সাবিনা ইয়াসমিনের সভাপতিত্বে সভায় অন্যদের মধ্যে পঞ্চগড়-১ আসনের সংসদ সদস্য মজাহারুল হক প্রধান, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইউসুফ আলী, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আনোয়ার সাদাত সম্রাট প্রমূখ। পরে মন্ত্রী পঞ্চগড় থেকে বাংলাবান্ধা পর্যন্ত প্রস্তাবিত রেল লাইন এলাকা সরেজমিন পরিদর্শন করেন।