ফ্রান্সে শক্তিশালী ঝড়ে বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন হাজারো মানুষ

মিরর ডেস্ক : ফ্রান্সের উত্তরাঞ্চলে শক্তিশালী ঝড় বেলার প্রভাবে আকস্মিক বৃষ্টিপাত এবং ঝোড়ো বাতাস বয়ে যাচ্ছে। ঝড়ের প্রভাবে হাজার হাজার মানুষ বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন অবস্থায় দিন কাটাচ্ছে। দেশটিতে রবিবার সব ধরনের বিমান চলাচলে বিঘ্ন ঘটছে।

ফ্রান্সের উত্তরাঞ্চলের ব্রিটানি এবং নরম্যান্ডিতে প্রায় ১২ হাজার বাড়ি-ঘর বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন অবস্থায় রয়েছে। অপরদিকে কালাইস অঞ্চলে প্রায় ৬ হাজার বাড়ি-ঘর বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন অবস্থায় রয়েছে। বিদ্যুৎ কোম্পানি এনেডিস জানিয়েছে, বিদ্যুৎ সরবরাহ রোববার বিকেল থেকে পুণরায় স্বাভাবিক হতে শুরু করবে।

বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ঝড়ের কারণে প্যারিসের উত্তরাঞ্চলে অবস্থিত ফ্রান্সের প্রধান বিমানবন্দর চার্লস ডে গাওলের প্রায় এক তৃতীয়াংশ বিমানের ফ্লাইট প্রায় ৫০ মিনিট সময় দেরি করে ছেড়ে গেছে। ঝড়ের কারণে বিমানের বেশিরভাগ ফ্লাইটেই বিলম্ব হচ্ছে বা উড্ডয়নের পর পুনরায় বিমানবন্দরে ফিরে আসছে।

প্যারিসের অরলি বিমানবন্দর থেকে ছেড়ে যাওয়া তিনটি বিমানের ফ্লাইট আবারও ফিরে এসেছে। পাও এবং স্টেড ফ্রান্সাইসের মধ্যবর্তী পূর্ব নির্ধারিত একটি গুরুত্বপূর্ণ ফ্লাইটও তিন ঘণ্টা পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে।

রবিবার বিকেলের দিকে ঝড়-বৃষ্টি কমে যাওয়ার পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে। তবে সোমবার ঝড়ের গতিবেগ ফান্সের দক্ষিণে অগ্রসর হতে পারে বলে সতর্ক করা হয়েছে। ফলে ওই অঞ্চলে ভারী বৃষ্টিপাত ও ঝোড়ো বাতাস বয়ে যাবে।

একই ধরনের বিপর্যয় আঘাত হেনেছে ইংল্যান্ডের দক্ষিণে। সেখানে বাতাসের সর্বোচ্চ গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ১৭০ কিলোমিটার। ওয়েলসে প্রায় ২০ হাজার মানুষ বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন অবস্থায় দিনযাপন করছে।

ফ্রান্সে মহামারি করোনা সংকটের মধ্যেই ঝড়, বৃষ্টিতে নাজেহাল হয়ে পড়েছে জনজীবন। করোনা সংক্রমণে বিশ্বে ৫ম অবস্থানে রয়েছে ফ্রান্স। দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ২৫ লাখ ৫৯ হাজার ৬৮৬। এর মধ্যে মারা গেছে ৬২ হাজার ৭৪৬ জন।