দিল্লিতে একই মঞ্চে অমিত শাহ-সৌরভ গাঙ্গুলি, চলছে নানা গুঞ্জন

মিরর ডেস্ক : ধীরে ধীরে ভারতীয় রাজনীতিতে নাম লেখাচ্ছেন ভারতের সাবেক ক্রিকেটার, বর্তমানে বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি! বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট হওয়ার সময় এই আলোচনা একবার উঠেছিল। এবার আবারও উঠলো, কারণ দিল্লির ফিরোজ শাহ কোটলায় একই মঞ্চে অমিত শাহের সঙ্গে উঠলেন সৌরভ।

রবিবার সৌরভকে নিয়ে ভারতীয় রাজনীতিতে জোরালোভাবে গুঞ্জন শুরু হয়। সামনেই ভারতের নির্বাচন। যাকে ঘিরে ক্ষমতাসীন বিজেপি পুরো ভারতে দলকে ঢেলে সাজানোর উদ্যোগ নিয়েছে। তার অংশ হিসেবে কি তাহলে সৌরভ খুব শিগগিরই রাজনীতিতে নাম লেখাতে যাচ্ছন?

রবিবার দুপুরে কলকাতার রাজভবনে গিয়ে রাজ্যপাল জগদিপ ধনকড়ের সঙ্গে দেখা করেন। তার হঠাৎ রাজভবনে যাওয়া নিয়েই তৈরি হয়েছে জ্বল্পনা। ভারতীয় মিডিয়াগুলোতেই এ নিয়ে লেখা হচ্ছে নানা কথা। সবারই প্রায় একই সুর, রাজনীতিতে নাম লেখাচ্ছেন সৌরভ!

যদিও রাজভবন থেকে বের হওয়ার সময় সৌরভ এ নিয়ে কোনো কথাই বলেননি। পরে টুইট করে রাজ্যপাল জগদিপ ধনকড় জানিয়ে দেন, এটা ছিল স্রেফ সৌজন্য সাক্ষাৎ।

কিন্তু আজ দিল্লিতে ফিরোজ শাহ কোটলায় বিজেপি সভাপতি এবং ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে একই মঞ্চে ওঠার কারণে সৌরভকে নিয়ে যে গুঞ্জনের ডালপালা মেলেছে, সেগুলো আরও চওয়ড়া হতে শুরু করে।

ভারতের সাবেক কেন্দ্রীয় মন্ত্রী এবং বিসিসিআইতে দীর্ঘদিন বিভিন্ন দায়িত্ব পালন করা অরুন জেটলির আজ ছিল ৬৮তম জন্মদিন। দিল্লির ফিরোজ শাহ কোটলায় এ উপলক্ষে জেটলির একটি মূর্তি তৈরি করা হয়। যেটাকে আজ উদ্বোধন করেন অমিত শাহ এবং সৌরভ গাঙ্গুলি। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিসিসিআই সেক্রেটারি জয় শাহ, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর এবং বিজেপির এমপি গৌতম গম্ভীর।

ফিরোজ শাহ কোটলায় মূর্তি উন্মোচন অনুষ্ঠানে যোগ দিতে আজ সকালে কলকাতা থেকে দিল্লি উড়ে যান বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি।দিল্লি যাওয়ার আগে কলকাতা বিমানবন্দরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি শুধু বলেন, ‘ডিডিসিএর অনুষ্ঠানে যাচ্ছি।’

দিল্লির অনুষ্ঠানে অবশ্য রাজনীতি নিয়ে কোনো কথাই বলেননি সৌরভ। তার বক্তব্যে ছিল শুধু অরুন জেটলিকে নিয়ে কিছু স্মৃতিচারণ। অমিত শাহও সাবেক কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর স্মৃতিচারণ করেন।

সৌরভ গাঙ্গুলি অরুন জেটলির স্মৃতিচারণ করে বলেন, ‘অরুণ জেটলি বরাবরই ক্রিকেটার্স পার্সন ছিল। কোনো সাবেক ক্রিকেটারকে এই প্রসঙ্গে জিজ্ঞাসা করা হলে, তিনিও তাই বলবেন। ক্রিকেটে একজনের প্রশাসকের ভূমিকাও যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ। আমি নিজেও সেটা বুঝেছি।’