চিনিকল চালুর দাবিতে মহিমাগঞ্জে চলছে হরতাল

গাইবান্ধা প্রতিনিধি : রংপুর সুগার মিলে আখ মাড়াই কার্যক্রম বন্ধের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবিতে গাইবান্ধার মহিমাগঞ্জ এলাকায় অর্ধদিবস হরতাল পালিত হচ্ছে। বৃহস্পতিবার (২৪ ডিসেম্বর) সকাল ৬টা থেকে হরতাল শুরু হয়, যা চলবে দুপুর ২টা পর্যন্ত। বিশৃঙ্খলা ও অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী এই হরতাল কর্মসূচির পালন করছেন মহিমাগঞ্জ চিনিকলের শ্রমিক-কর্মকর্তা-কর্মচারী ও আখ চাষিরা। হরতালের সমর্থন জানিয়ে মহিমাগঞ্জ বাজার ও স্টেশন এলাকার দোকান-পাট এবং ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখেছেন স্থানীয় ব্যবসায়ীরা।

মহিমাগঞ্জে হরতাল পালনের বিষয়টি নিশ্চিত করেন রংপুর চিনিকল শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান দুলাল। তিনি জানান, দুপুর ২টা পর্যন্ত এই হরতাল পালন করা হবে। রাস্তাঘাটে কোনও যানবাহন চলাচল করতে দেওয়া হবে না। বন্ধ থাকবে দোকানপাট ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান।
আন্দোলকারীদের অভিযোগ, গভীর ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবেই রাষ্ট্রায়ত্ত চিনিকলগুলো বন্ধ করে দেওয়ার পাঁয়তারা করা হচ্ছে। অথচ রংপুরের মহিমাগঞ্জ চিনিকলের প্রায় এক হাজার শ্রমিক-কর্মচারী এবং সাত উপজেলার হাজার-হাজার আখ চাষিসহ প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে লক্ষাধিক মানুষ এর সঙ্গে জড়িত। মিলটি চালুর সিদ্ধান্ত থেকে সরে না এলে শ্রমিক-কর্মচারীসহ শতশত পরিবারের সদস্য ছাড়াও এ অঞ্চলের মানুষের জীবন-জীবিকা হুমকির মুখে পড়বে বলেও দাবি আন্দোলনকারীদের।

অবিলম্বে চিনিকল চালুসহ শ্রমিক-কর্মচারী ও আখ চাষিদের বকেয়া পাওনা পরিশোধে দাবি আদায় না হলে আগামী সময়ে রেলপথ, রাজপথ অবরোধসহ আরও কঠোর আন্দোলন কর্মসূচির হুঁশিয়ারি দেন শ্রমিক-কর্মচারী ও আখচাষি সংগঠনের নেতারা।

এর আগে, ১ ডিসেম্বর দেশের ১৫টি চিনিকলের মধ্যে ছয়টি চিনিকলে আখ মাড়াই বন্ধ রেখে ৯টি চিনিকলে মাড়াই চালু রাখার সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প করপোরেশন। এই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার, চিনিকলে মাড়াই কার্যক্রম চালু এবং শ্রমিক-কর্মচারী ও আখ চাষিদের পাওনা পরিশোধসহ বিভিন্ন দাবিতে আন্দোলনে নামেন আখ চাষি ও শ্রমিক-কর্মচারীরা। ইতোমধ্যে বিক্ষোভ সমাবেশ, সড়ক অবরোধ ও অবস্থান কর্মসূচিসহ প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি পেশ করেছেন শ্রমিক-কর্মচারীরা।