মদ্যপ সন্দেহ হলেই চালককে পাঠানো হবে হাসপাতালে

মিরর ডেস্ক : মদ্যপ অবস্থায় গাড়ি চালানোর কারণে দুর্ঘটনা বেড়ে গেছে ভারতের কলকাতার লালবাজারে। আবার পুলিশের অভিযানেও ঢিলেঢালা ভাব চলে এসেছে। তবে দুর্ঘটনা রোধে আবারও তৎপর হয়েছে পুলিশ। কোনো চালককে মদ্যপ মনে হলেই আটক করে হাসপাতালে পাঠানোর উদ্যোগ নিচ্ছে। করোনার কারণে ব্রেথ অ্যানালাইজার ব্যবহার বন্ধ থাকায় পুলিশ এ ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে।

ভারতের সংবাদমাধ্যমগুলো জানায়, চলতি সপ্তাহে বড়দিনের উৎসবের আগেই মদ্যপ চালকদের বিরুদ্ধে রাতের এই বিশেষ অভিযান শুরু হবে। কারণ, বড়দিন এবং বর্ষবরণের উৎসবের এই সময়ে গাড়ি ও মোটরবাইক চালকদের একটি বড় অংশই মদ্যপ অবস্থায় রাস্তায় বের হন। এ ছাড়া গত কয়েক দিনের কয়েকটি দুর্ঘটনা থেকেও তা অনুমান করছে পুলিশ।

পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, গত সপ্তাহে দক্ষিণ কলকাতার গরফায় মদ্যপ অবস্থায় গাড়ি চালাতে গিয়ে এক পথচারীকে চাপা দেন এক চালক। কয়েক দিনের মধ্যেই মদ্যপ অবস্থায় মোটরসাইকেল চালাতে গিয়ে দুর্ঘটনায় মারা যান দু’জন। এ অবস্থায় তৎপরতা বাড়ানো হবে বলে জানিয়েছেন পুলিশের এক কর্মকর্তা। তিনি জানান, শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে রাতভর এই বিশেষ অভিযান চালানো হবে।

করোনা সংক্রমণের আশঙ্কায় গত মার্চ থেকে সন্দেহভাজন চালকদের ব্রেথ অ্যানালাইজার দিয়ে পরীক্ষা বন্ধ রয়েছে। এ কারণে থমকে গেছে মদ্যপ চালক শনাক্তের অভিযান। আবার বিভিন্ন হাসপাতাল করোনা চিকিৎসার জন্য নির্দিষ্ট হওয়ায় চালকরা সংক্রমণের ভয়ে সেখানে যেতে চান না। সে কারণেও পুলিশি অভিযান ঢিলেঢালা হয়ে পড়ে। তবে দুর্ঘটনা বাড়তে থাকায় আবার অভিযান শুরু করছে পুলিশ।