ভ্যাকসিন সম্পর্কিত বিভ্রান্তিকর তথ্য সরাবে ফেসবুক-টুইটার

মিরর ডেস্ক : বিশ্বের বিভিন্ন দেশে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন অনুমোদনের পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ও টুইটার তাদের প্ল্যাটফর্মগুলো থেকে এ সম্পর্কিত বিভ্রান্তিকর তথ্য ও কন্টেন্টের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের ঘোষণা দিয়েছে। ইন্ডিয়া টুডের এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানা যায়।

বুধবার (১৬ ডিসেম্বর) টুইটার জানিয়েছে, তারা করোনার ভ্যাকসিন সম্পর্কিত বিভ্রান্তিকর তথ্য ও সম্ভাব্য ক্ষতিকারক টুইটগুলো সরানো শুরু করবে। ফেসবুকও বলেছে, তারাও সামনের সপ্তাহ থেকে ভ্যাকসিন সম্পর্কিত ভুল তথ্য দেয় এমন কন্টেন্ট সরিয়ে ফেলবে।

বিভ্রান্তিকর তথ্যের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের কথা জানিয়ে টুইটার একটি ব্লগে জানিয়েছে, ‘বর্তমান বৈশ্বিক পরিপ্রেক্ষিতে ভ্যাকসিন নিয়ে ভুল তথ্য ক্রমবর্ধমান জনস্বাস্থ্যের জন্য গুরুত্বপূর্ণ চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখা দিয়েছে। এ ব্যাপারে আমাদের সবাইকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে। আগামী সপ্তাহ থেকে আমরা টুইটার থেকে ক্ষতিকারক ও বিভ্রান্তিমূলক তথ্য অপসারণকে অগ্রাধিকার দেব এবং ভ্যাকসিন নিয়ে বিভ্রান্তিমূলক তথ্য রয়েছে এমন টুইটগুলো সরানো শুরু করবো। আমরা বর্তমানে মানুষের স্বাস্থ্যের ও সুস্থতার জন্য সবচেয়ে সম্ভাব্য ক্ষতির উপস্থাপন করে এমন বিভ্রান্তিকর তথ্য সরিয়ে ফেলার দিকে মনোযোগ দিচ্ছি।’

টুইটার জানিয়েছে, তারা বিশেষত এমন টুইটগুলো সরাবে যা ভাইরাসের প্রকৃতি সম্পর্কে মিথ্যা তথ্য দেয়, যা এর চিকিত্সা ও বিধিনিষেধ নিয়ে মানুষকে ভুল দিকে প্রভাবিত করে।

ফেসবুকও করোনাভাইরাস নিয়ে বিভ্রান্তিকর তথ্যের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে। তারা এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, আমরা সামনের সপ্তাহ থেকে ফেসবুক ও ইন্সটাগ্রাম থেকে করোনা ভ্যাকসিন নিয়ে বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়ায় এমন তথ্যগুলো জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিয়ে সরিয়ে ফেলবো।

বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন হিসেবে ফাইজারের ভ্যাকসিনের অনুমোদন দেয় যুক্তরাজ্য। সর্বশেষ আনুষ্ঠানিকভাবে সিঙ্গাপুর এই ভ্যাকসিনের অনুমোদন দিয়েছে।