করোনায় আরও ৩৬ জনের মৃত্যু

ঢাকা : করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে আরও ৩৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। তাদের মধ্যে ২৭ জন পুরুষ ও ৯ জন নারী। তাদের সবাই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। এ নিয়ে ভাইরাসটিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৭ হাজার ১৯২ জনে। এ সময় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছেন আরও এক হাজার ১৩৪ জন। দেশে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল ৪ লাখ ৯৬ হাজার ৯৭৫ জনে।

বৃহস্পতিবার (১৭ ডিসেম্বর ) বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

গত ২৪ ঘণ্টায় ১৪০টি ল্যাবরেটরিতে ১২ হাজার ৭৭৬টি নমুনা সংগ্রহ ও ১৩ হাজার ১৯১টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এ নিয়ে মোট নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা দাঁড়াল ৩০ লাখ ৩৫ হাজার ৭২৮টি।

রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন হাসপাতাল ও বাড়িতে উপসর্গবিহীন রোগীসহ গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ২৩৯ জন। এ পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ৪ লাখ ৩১ হাজার ৫৯০ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার হার ৮ দশমিক শূন্য ৬ শতাংশ। এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৬ দশমিক ৩৭ শতাংশ এবং শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৬ দশমিক ৮৪। শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৪৫ শতাংশ।

গত ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত ও ১৮ মার্চ প্রথম করোনা রোগীর মৃত্যু হয়। এ পর্যন্ত মোট মৃত্যু ৭ হাজার ১৯২ জনের। তাদের মধ্যে পুরুষ ৫ হাজার ৪৮৯ জন (৭৬ দশমিক ৩২ শতাংশ) ও নারী এক হাজার ৭০৩ জন (২৩ দশমিক শূন্য ৬৮ শতাংশ)।

মৃতদের বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায়, ২৪ ঘণ্টায় মৃত ৩৬ জনের ত্রিশোর্ধ্ব একজন, চল্লিশোর্ধ্ব দুই, পঞ্চাশোর্ধ্ব চার এবং ৬০ বছরের ঊর্ধ্বে ২৯ জন।

বিভাগভিত্তিক হিসাবে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত ৩৬ জনের মধ্যে ঢাকা বিভাগে ২০ জন, চট্টগ্রামে আট, রাজশাহীতে দুই, খুলনায় এক, সিলেটে এক, রংপুর তিন এবং ময়মনসিংহ বিভাগের একজন। এ সময়ের মধ্যে বরিশাল বিভাগে করোনা আক্রান্ত কেউ মারা যাননি।