৫০ হাজার মেট্রিক টন সার যাচ্ছে নেপাল

ঢাকা : নিজেদের আপৎকালিন পরিস্থিতি সামাল দিতে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশ থেকে ৫০ হাজার মেট্রিক টন ইউরিয়া সার কিনছে নেপাল। এসব সারের প্রতি টনের মূল্য ২৬৩ ডলার। সেই হিসাবে সারের দাম হবে ১১১ কোটি ৭০ লাখ ৯২ হাজার ৫০০ টাকা। সার পৌঁছানোর পর এর মূল্য পরিশোধ করবে নেপাল।

অতিরিক্ত পররাষ্ট্রসচিব মাশফি বিনতে শামস জানান, বাংলাদেশ সরকারের অনুমোদন সাপেক্ষে সার কেনা হচ্ছে। দ্বিপাক্ষিক প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়েই সার কেনা সম্পন্ন হচ্ছে।

তিনি বলেন, কর্ণফুলী ইউরিয়া ফার্টিলাইজার কোম্পানি লিমিটেড বা কাফকো থেকে বাজার মূল্যে সার কিনে বাংলাদেশ কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ করপোরেশন (বিসিআইসি) নেপালের কৃষিসামগ্রী কোম্পানি লিমিটেডের (কেএসসিএল) কাছে ওই সার হস্তান্তর করবে। দু’দেশের পক্ষে চুক্তি সইও করবে এই দুটি সংস্থা।

ঢাকায় নেপালের রাষ্ট্রদূত বংশীধর মিশ্র গণমাধ্যমে জানান, ১ সেপ্টেম্বর নেপালের প্রধানমন্ত্রী কে পি শর্মা ওলি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ফোন করে বাংলাদেশ থেকে ৫০ হাজার মেট্রিক টন সার সহায়তা হিসেবে চান। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী নেপালের প্রধানমন্ত্রীর ওই অনুরোধ অনুযায়ী সার সরবরাহের প্রতিশ্রুতি দেন। ওই সিদ্ধান্তই ১৭ ডিসেম্বর চুক্তি সইয়ের মাধ্যমে কার্যকর হতে হচ্ছে।

শুরুতে দুই দেশের আলোচনা অনুযায়ী ফেরতযোগ্য ঋণের আওতায় নেপালের কাছে বাংলাদেশের সার বিক্রির বিষয়ে চুক্তি হয়। ওই ঋণ পরিশোধের জন্য সময় ধরা হয়েছিল ১৮ মাস। পরে চুক্তির শর্ত শিথিল করা হয়। এখন সিদ্ধান্ত হয়েছে, বাংলাদেশ সরকার কাফকো থেকে যে দামে সার কিনবে, নেপাল সেই টাকাই বাংলাদেশকে ফেরত দেবে।

এদিকে, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, ব্যবসা বাণিজ্য জোরদারে শিগগিরই দুই দেশের মধ্যে প্রিফারেন্সিয়াল ট্রেড এগ্রিমেন্ট (পিটিএ) স্বাক্ষরিত হবে। এ বিষয়ে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি সাধিত হয়েছে। গত ১ সেপ্টেম্বর দু’দেশের প্রধানমন্ত্রীর মধ্যে সার সংক্রান্ত আলোচনার সময় পিটিএ-এর বিষয়ে আলোচনা হয় বলেও জানা গেছে।