মহামারিতে যুক্তরাজ্যে চাকরি হারিয়েছে ৮ লাখ ১৯ হাজার মানুষ

মিরর ডেস্ক : যুক্তরাজ্যে করোনাভাইরাস মহামারির কারণে সৃষ্ট অর্থনৈতিক মন্দায় চাকরি হারিয়েছেন আট লাখেরও বেশি মানুষ। আগামী বছরের মাঝামাঝি দেশটিতে বেকারের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন অর্থনীতিবিদরা।

যুক্তরাজ্যের জাতীয় পরিসংখ্যান অধিদপ্তর (ওএনএস) জানিয়েছে, গত ফেব্রুয়ারিতে দেশটিতে মহামারি শুরুর আগে যতজন বেতনভুক্ত কর্মী ছিলেন, নভেম্বরে রয়েছেন তার চেয়ে অন্তত ৮ লাখ ১৯ হাজার কম। অর্থাৎ এই কয়মাসে যুক্তরাজ্যে আট লাখের বেশি মানুষ বেকার হয়ে পড়েছেন।

বেড়েছে বেকারত্বের হারও। গত সেপ্টেম্বরে যুক্তরাজ্যে বেকারত্বের হার ছিল ৪ দশমিক ৮ শতাংশ, অক্টোবরে তা বেড়ে দাঁড়ায় ৪ দশমিক ৯ শতাংশ। অবশ্য অর্থনীতিবিদরা ধারণা করেছিলেন, এই সময়ে দেশটিতে বেকারত্বের হার ৫ দশমিক ১ শতাংশে পৌঁছাতে পারে।

ওএনএস জানিয়েছে, অক্টোবরে মানুষের চাকরি হারানোর গতি কিছুটা কমেছে। তারপরও সেসময় তিন মাসে বেকারের সংখ্যা বেড়েছে রেকর্ড ৩ লাখ ৭০ হাজার জন।

যুক্তরাজ্যে দ্বিতীয় দফার লকডাউনে চরম সংকটে রয়েছে পাব, রেস্টুরেন্ট, হোটেল, নাইটক্লাবের মতো প্রতিষ্ঠানগুলো। ইতোমধ্যেই ব্রিটিশ সরকারের কাছে বাড়তি প্রণোদনা সহায়তার জন্য অনুরোধ জানিয়েছে তারা।

ওনএস বলেছে, করোনা সম্পর্কিত বিধিনিষেধ তো রয়েছেই, তার ওপর ডিসেম্বরে ব্রেক্সিট ট্রানজিশন পিরিয়ড শেষ হওয়ার আগে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সঙ্গে নতুন বাণিজ্য চুক্তি নিয়ে অনিশ্চয়তার কারণে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন ব্যবসায়ীরা।

অর্থনীতিবিদরা হুঁশিয়ারি দিয়েছেন, এই জোড়া হুমকির কারণে যুক্তরাজ্যে দ্বিগুণ মন্দা সংকট তৈরির আশঙ্কা রয়েছে।

ব্যাংক অব ইংল্যান্ড ইতোমধ্যেই পূর্বাভাস দিয়েছে, ২০২১ সালের দ্বিতীয় প্রান্তিকে দেশটিতে বেকারত্বের হার সর্বোচ্চ ৭ দশমিক ৭৫ শতাংশে পৌঁছাতে পারে।

সূত্র: স্কাই নিউজ