ভারতে আইফোন কারখানা ভাঙচুর

মিরর বিনোদন : বেতন নিয়ে অসন্তোষের জেরে ভারতের কর্নাটকে আইফোন কারখানায় ভাঙচুর চালিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির কর্মীরা। রবিবার (১৩ ডিসেম্বর) সকালে উইস্ট্রন কর্পোরেশনের কর্নাটকের অফিসে হামলা ও ভাঙচুর চালায় তারা।

তাইওয়ানের প্রযুক্তি সংস্থা উইস্ট্রন কর্পোরেশন আইফোন ৭, লেনোভো ও মাইক্রোসফটের আইটি প্রডাক্ট তৈরি করে।

কর্নাটক সরকার এই হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে। এ ঘটনায় ৮০ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বেঙ্গালুরুর ৫০ কিলোমিটার পূর্বে কোলার জেলার নরসাপুরার ওই কারখানার কর্মীরা সকালে হঠাৎ ভাঙচুর শুরু করে। তাদের অভিযোগ, বেতন নিয়ে বেশ কয়েক মাস তাদের ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে স্লোগান দিতে দিতে তারা অফিসে ইটপাটকেল ছোড়েন, সংস্থার একটি নেম বোর্ডে আগুন ধরিয়ে দেন, একটি গাড়িতেও লাগানো হয় আগুন।

পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাঠিচার্জ করে বিক্ষোভকারীদের সরিয়ে দিয়েছে। এসময় ৮০ জন বিক্ষোভকারীকে আটক করা হয়।

এক ট্রেড ইউনিয়ন নেতার অভিযোগ, বেশিরভাগ কর্মীই এই সংস্থায় চুক্তিভিত্তিক কাজ করেন, তারা নির্দিষ্ট সময়ে বেতন পান না। অনেক সুযোগ-সুবিধা থেকেও শ্রমিকরা বঞ্চিত।

কর্নাটকের উপ মুখ্যমন্ত্রী সি অশ্বথনারায়ণ ভাঙচুরের ঘটনার নিন্দা জানিয়ে বলেছেন, ‘আইন কেউ হাতে তুলে নিতে পারে না। সহিংসতায় না মেতে সমস্যা সমাধানের জন্য নির্দিষ্ট ফোরামে যাওয়াই ছিল উপযুক্ত কাজ।’

তিনি আরও বলেন, অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে, একইসঙ্গে দেখা হবে, কর্মীদের যেন ঠিকমত বেতন দেওয়া হয়, তাদের বকেয়া মিটিয়ে দেওয়া হয়।

তাইওয়ানের উইস্ট্রন সংস্থার অংশ এই উইস্ট্রন কর্পোরেশনের নরসাপুরা কারখানায় দুই হাজারের মতো কর্মী কাজ করেন। এদের বড় অংশ স্থানীয় মানুষ।

কর্মীদের সংখ্যা বাড়িয়ে কর্তৃপক্ষ আট হাজার করার কথা ভাবছে বলে শোনা যাচ্ছে। তবে অল্প সংখ্যক কর্মীর বেতনভাতা নিয়েই যে অসন্তোষ সে জায়গায় অধিকসংখ্যক কর্মীদের ক্ষেত্রে কী হতে পারে তা নিয়ে অনেকেই চিন্তিত!