ভাঙা হলো হাজী সেলিমের মদিনা ফিলিং স্টেশন

ঢাকা : বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে চলমান বিশেষ উচ্ছেদ অভিযানে এবার ভাঙা হলো ঢাকা-৭ আসনের সংসদ সদস্য হাজী মোহাম্মদ সেলিমের মালিকানাধীন একটি ফিলিং স্টেশন ও একটি গুদামঘর।

সোমবার এ অভিযানকালে পুরান ঢাকার লালবাগের কামালবাগ এলাকায় বাক্‌ ও শ্রবণপ্রতিবন্ধীদের স্কুলের জন্য বরাদ্দকৃত জমিতে হাজী সেলিমের গড়ে তোলা মদিনা ফিলিং স্টেশনের একাংশ এবং গুদামঘরটি উচ্ছেদ করেছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)। এছাড়া বিশেষ উচ্ছেদ অভিযানের চতুর্থ দিনে বুড়িগঙ্গার তীরভূমি থেকে আরও ১৭১টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ও দুই একর তীরভূমি উদ্ধার করা হয়েছে।

বুড়িগঙ্গা নদীর তীর দখলমুক্ত ও পুনর্দখল রোধে সোমবার চতুর্থ দিনের বিশেষ উচ্ছেদ অভিযানে নামেন বিআইডব্লিউটিএর ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ দিন সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত পুরান ঢাকার সোয়ারীঘাট-সংলগ্ন ইসলামবাগ থেকে কামালবাগের মদিনা পেট্রোল পাম্প পর্যন্ত উচ্ছেদ অভিযান চালানো হয়। বিআইডব্লিউটিএর ম্যাজিস্ট্রেট মাহবুব জামিল ও ঢাকা নদীবন্দরের যুগ্ম পরিচালক গুলজার আলীর নেতৃত্বে অভিযান চলে। অভিযানকালে অবৈধভাবে স্থাপিত পাঁচটি পাঁচতলা টিনের ঘর, আটটি চারতলা টিনের ঘর, ১০টি দোতলা টিনের ঘর, পাঁচটি পাকা দোতলা ভবন, ১০টি পাকা একতলা ভবন, ৩৫টি আধাপাকা ভবন, ৭০টি টংঘর, একটি কার ওয়াশরুম, দুটি স্টিলের গোডাউন ও ২৫টি দোকানঘর মিলিয়ে ১৭১টি স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। এ সময় নদীর ভরাট করা দুই একর জায়গা দখলমুক্ত করা হয়।

এদিকে উচ্ছেদ অভিযান দলটি শতাধিক অবৈধ স্থাপনা ভাঙচুরের পর বিকেল সাড়ে ৩টায় ক্ষমতাসীন দলের সংসদ সদস্য হাজী মোহাম্মদ সেলিমের মালিকানাধীন মদিনা ফিলিং স্টেশনের সামনে পৌঁছে। সেখানে বেশকিছু সময় নিয়ে ফিলিং স্টেশনের পূর্বপাশের গাড়ি ধোয়ার একটি ছাউনি এবং পশ্চিমপাশে গাড়ি মেরামতের একটি টিনশেড ঘর ভেঙে দেওয়া হয়। ভেঙে দেওয়া হয় হাজী সেলিমের দখলে থাকা একটি গুদামঘরও। এ সময় হাজী সেলিমের লোকজন ফিলিং স্টেশনে থাকলেও তারা কোনো প্রতিবাদ করেননি।

বিআইডব্লিউটিএর সহকারী পরিচালক রেজাউল করিম সাংবাদিকদের বলেন, মদিনা ফিলিং স্টেশনের যতটুকু বিআইডব্লিউটিএর সীমানায় পড়েছে, ততটুকু ভেঙে দেওয়া হয়েছে। তবে ফিলিং স্টেশনের সামনের দিকের পাম্পের শেডটি (গাড়িতে তেল ভরা হয় যেখান থেকে) উচ্ছেদ না করার কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, এখানে বিস্ম্ফোরক অর্থাৎ জ্বালানি তেল রয়েছে বলে ভাঙা হয়নি। তারা নিজেই এটি ভেঙে নেবেন বলে জানিয়েছেন।

সংশ্নিষ্টরা জানিয়েছেন, বাক্‌ ও শ্রবণপ্রতিবন্ধীদের পুনর্বাসনের জন্য স্কুল ভবন ও বধির কমপ্লেপ নির্মাণে ২০০৫ সালে লালবাগের কামালবাগ এলাকায় এক একর জমি বরাদ্দ দিয়েছিল জেলা প্রশাসন। জমিটি সরকারের অকৃষি খাসজমি। এই জমিই ২০০৮ সালে দখলে নিয়ে হাজী সেলিম মদিনা ফিলিং স্টেশন গড়ে তোলেন।

ঢাকার চারপাশের নদ-নদীর তীরে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ও পুনর্দখল ঠেকাতে বিরতি দিয়ে এ বিশেষ উচ্ছেদ অভিযান চালাচ্ছে বিআইডব্লিউটিএ। গত ২২ ও ২৩ নভেম্বর হাজী সেলিমের নির্বাচনী এলাকার ওয়াইজঘাটের বুড়িগঙ্গার তীরভূমি থেকে উচ্ছেদ অভিযান চালানো হয়। গত রোববার ও গতকাল সোমবার উচ্ছেদ অভিযান চলার পর বিরতি দিয়ে আবারও আগামী সপ্তাহে অভিযানে নামবে বিআইডব্লিউটিএ। এই চার দিনে মোট ৪৯১টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ এবং অবৈধ দখলদারদের কবল থেকে প্রায় সাড়ে পাঁচ একর তীরভূমি উদ্ধার করা হয়। এছাড়া অভিযানকালে হাজী সেলিমের মালিকানাধীন বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের নামে গড়ে তোলা বেশকিছু অবৈধ স্থাপনাও ভাঙা হয়েছে।