টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের মাঝেই রাহির চোখ টেস্টে

মিরর স্পোর্টস : করোনার কারণে অনেকটা দিন বিরতি ছিল। বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপ দিয়ে যে প্রতিযোগিতামূলক খেলায় ফেরা গেছে, তাতেই খুশি ক্রিকেটাররা। তবে এই টুর্নামেন্ট দিয়ে যে সবাই নিজেদের সীমিত ওভারের জন্য প্রস্তুত করছেন, এমন নয়। আবু জায়েদ রাহিই যেমন মাথায় রাখছেন টেস্টের কথা।

আগামী মাসেই ঢাকায় আসার কথা ওয়েস্ট ইন্ডিজের। সূচি চূড়ান্ত না হলেও শোনা যাচ্ছে, এই সফরে দুটি টেস্টের সঙ্গে ওয়ানডে আর টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে ক্যারিবীয়রা। আর টেস্টের প্রসঙ্গ আসলেই চলে আসবে আবু জায়েদ রাহির নাম। বর্তমানে এই ফরমেটে টাইগারদের পেস আক্রমণের মূল অস্ত্র রাহিই।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজের আগে লাল বলের কোনো খেলা নেই, লংগার ভার্সন ক্রিকেট থাকছে না। প্রস্তুতির এই ঘাটতি কি করে পোষাবেন টেস্ট খেলোয়াড়রা? রাহি মনে করেন, যেহেতু উপায় নেই, নিজেদেরই প্রস্তুতি নিতে হবে।

ডানহাতি এই পেসার বলেন, ‘আসলে আমরা যারা টেস্ট প্লেয়ার আছি, তাদের ভেতরে ভেতরে কিছু অনুশীলন করা উচিত। যেহেতু টেস্ট শুরুর আগে খুব বেশি সময় পাব না, লংগার ভার্সন ক্রিকেটও তেমন একটা নাই। আমার কাছে মনে হয় টেস্ট বোলাররা আরও বেশি সময় বল করা, নতুন বলে বল করা এগুলো নিজে নিজে করতে হবে।’

টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট দিয়ে টেস্টের প্রস্তুতি কি সম্ভব? রাহি মনে করেন, ফিটনেসে ফেরার আগে ক্রিকেটে ফেরাটাই বেশি দরকার ছিল খেলোয়াড়দের। সেটা হয়েছে, ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে সিরিজের আগে ক্যাম্প হবে, সেখান থেকে বাকি ঘাটতি পুষিয়ে নিতে চান এই পেসার।

রাহি ভাষায়, ‘টুর্নামেন্ট দরকার ছিল। কারণ আগে আমার ক্রিকেটে ফিরতে হবে, তারপরে ফিটনেসে ফিরতে হবে। ক্রিকেটটা শুরু হয়েছে। ২৫ তারিখ থেকে যে ক্যাম্পটা শুরু হবে, হয়তোবা সেখানে আমরা আবারও লাল বলে অনুশীলন শুরু করব। এছাড়া দেখবেন যে ক্রিকেট শুরু হওয়ার সাথে সাথে লাল বল দিয়ে শুরু হচ্ছে। আমার কাছে মনে হয় না প্লেয়ারদের ম্যাচ ফিটনেস এখন আছে। লাল বলের ক্রিকেটে যথাসম্ভব মনযোগ দিতে হবে।’