দিনাজপুরে ‘বীরগঞ্জ’ মুক্ত দিবস পালিত

বীরগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধি : মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি বলেছেন, একাত্তরের পরাজিত শত্রুরা সমৃদ্ধির পথে অগ্রগামী বাংলাদেশের বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির জন্য, বাংলাদেশের বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। তাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এবং একাত্তরের চেতনায় আমাদের আগামীর পথচলা নির্ধারণ করতে হবে।

রবিবার সকালে বীরগঞ্জ উপজেলা পাকিস্তানী হানাদার মুক্ত দিবস উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন এর আয়োজনে মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আব্দুল কাদের-এর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আমিনুল ইসলাম, উপজেলা সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার কালীপদ রায়, বীর মুক্তিযোদ্ধা এস এম খালেক, উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মো. নুর ইসলাম নুর, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মো. শামিম ফিরোজ আলম প্রমুখ। শুরুতে দিবসটি যথাযথ মর্যদায় উদযাপনের লক্ষ্যে বীরগঞ্জ মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স চত্বরে অবস্থিত জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পন, তাজমহল মোড়ে শহীদ বুধারু স্মৃতিস্তম্ভে ও বীরগঞ্জ প্রেসক্লাবের পাশে শহীদ মহসীন আলী’র কবরে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পন করেন মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপিসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

উল্লেখ্য, ১৯৭১ সালের এই দিনে মুক্তিযোদ্ধা ও ভারতীয় মিত্র বাহিনীর আক্রমনে ঢাকা-পঞ্চগড় মহাসড়কের ভাতগাঁও ব্রীজে বাংকারে পাকিস্তানী হানাদার বাহিনী অবস্থান নেয়। যৌথ বাহিনীর ট্যাংক-কামান-মেশিনগান ও বিমান হামলা থেকে নিজেদের বাঁচাতে এই দিনে পাকিস্তানী হানাদার বাহিনী পালিয়ে পার্শ্ববতী সৈয়দপুর উপজেলায় পালিয়ে যায়। মুক্ত হয় দিনাজপুরের ‘বীরগঞ্জ’ উপজেলা।